বিদেশের খবর

ভারতের শীর্ষ ধনী মুকেশ আম্বানি দ্বিতীয় আদানি

Spread the love

শেরপুর ডেস্ক: গত বছর রীতিমতো চ্যালেঞ্জের মধ্যে কাটাতে হয়েছে ভারতীয় শিল্পপতিদের। ফোর্বসের ২০১৯-এর ব্যবসায়ীদের তালিকায় দেখা গেছে তাদের মোট সম্পদের পরিমাণ ৮ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তার স্বাধীনতা দিবসের ভাষণে বলেছিলেন যে শিল্পপতিরা দেশের দারিদ্র্য হ্রাস করতে সহায়তা করে এবং তারা যথেষ্ট সম্মান ও উৎসাহের দাবিদার।
ফোর্বস ভারতের ধনী তালিকা ২০১৯ অনুযায়ী ১৫.৭ বিলিয়ন ডলার মূল্যের সম্পত্তির অধিকারী হিসেবে শিল্পপতি গৌতম আদানি তালিকার ৮ দফা এগিয়ে এসে ভারতের দ্বিতীয় ধনী হয়েছেন এবং রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের চেয়ারম্যান মুকেশ আম্বানি ৫১.৪ বিলিয়ন ডলার উপার্জনের ভিত্তিতে নিজেকে এক নম্বরেই ধরে রেখেছেন। মুকেশ আম্বানি এ নিয়ে টানা ১২ বছর ধনী ভারতীয় হিসেবে নিজের জায়গা ধরে রেখেছেন।
তিনি তার রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের ৩ বছরের পুরনো টেলিযোগাযোগ ইউনিট, জিও আনার মাধ্যমে নিজের সম্পত্তিতে ৪.১ বিলিয়ন ডলার যুক্ত করেছেন। ৩৪০ মিলিয়ন গ্রাহক হয়ে ভারতের অন্যতম বৃহত্তম মোবাইল পরিষেবা সংস্থা হয়ে উঠেছে জিও, বলে ফোর্বস।
অশোক লেল্যান্ডের মালিক হিন্দুজা ভাইরা ১৫.৬ বিলিয়ন ডলার উপার্জনের নিরিখে তৃতীয়, সাপুর জি পালনজি গ্রুপের পালনজি মিস্ত্রি ১৫ বিলিয়ন ডলার উপার্জন করে চতুর্থ স্থান অধিকার করেছেন। কোটাক মাহিন্দ্রা ব্যাংকের উদয় কোটাক ১৪.৮ বিলিয়ন ডলার উপার্জন করে পঞ্চম স্থানে রয়েছেন এবং তারপরে রয়েছেন এইচসিএল টেকনোলজিসের শিব নদার যার উপার্জন ১৪.৪ বিলিয়ন ডলার।

তালিকায় ছয়জন নতুন ধনী জায়গা করে নিয়েছেন। ১.৯১ বিলিয়ন ডলার উপার্জন করে তালিকায় ৭২ নম্বরে জায়গা করে নিয়েছেন বাইজুর প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও, বাইজু রভেন্দ্রন। তালিকায় রয়েছেন হলদিরাম স্ন্যাকসের মনোহর লাল ও মধুসূদন আগরওয়াল, জাচরার রাজেশ মেহরা, অ্যাস্ট্রাল পল টেকনিকের সন্দ্বীপ ইঞ্জিনিয়ার।
গত বছরের তালিকা থেকে ৯ জন বাদ পড়েছেন। এ হ্রাসের অন্যতম কারণ হল টেকনো টাইকুন আজিম প্রেমজি, যিনি উল্লেখযোগ্য তালিকার ২ নম্বর থেকে ১৭ নম্বরে নেমে আসেন, জানিয়েছে ফোর্বস। সূত্র : এনডিটিভি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close