স্থানীয় খবর

শেরপুরে করোনা সন্দেহে স্বামীকে ঘর থেকে বের করে দিল স্ত্রী : উদ্ধার করলো পুলিশ

Spread the love

ষ্টাফ রির্পোটার: করোনা সন্দেহে স্বামীকে ঘর থেকে বের করে দিয়ে তালা লাগিয়ে দিল স্ত্রী। উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করালো শেরপুর থানা পুলিশ।
থানা সুত্রে জানাযায় বগুড়ার শেরপুর উপজেলার বিশালপুর ইউনিয়নের সিমলা সাতবাড়িয়া গ্রামের বেলাল হোসেন। বয়স ৬৫। মানিকগঞ্জে দিনমজুরের কাজ করে সে। গত ১৫ জুন মানিকগঞ্জ থেকে সিমলা সাতবাড়িয়া গ্রামের নিজ বাড়িতে এসেছে। এসে তার জ্বর শুরু হয়েছে। জ্বরের কারণে স্ত্রী আনোয়ারা খাতুন গত মঙ্গলবার থেকে তাকে এড়িয়ে চলছে। করোনা হয়েছে সন্দেহ করে বুধবার বিকেল ৫ ঘটিকার দিকে তার স্ত্রী আনোয়ারা খাতুন তাকে ঘর থেকে বের করে দিয়ে ঘরে তালা লাগিয়ে দেয়। একদিকে স্ত্রী যেমন নিজ ঘরে জায়গা দেয় নি অপরদিকে আশেপাশের লোকজনও তাকে তাদের বাড়ির ত্রি-সীমানায় যেতে নিষেধ করেছে। অবিরাম বৃষ্টিতে ভিজতে থাকে সে। বৃষ্টিতে ভিজেই যেন তার মৃত্যু হয় মনে মনে সেই দোয়া করতে থাকে। অতঃপর স্থানীয় চেয়ারম্যানের মাধ্যমে ঘটনাটি শেরপুর থানার ওসির কানে পৌছে। এ রকম অমানবিক ঘটনার কথা শুনেশেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: হুমায়ন কবির থানা থেকে অফিসার ও ফোর্স প্রেরণ করেন। মুষলধারে বৃষ্টি হচ্ছিল তখন। শেরপুর থানা পুলিশ বৃষ্টি উপেক্ষা করে সেখানে উপস্থিত হয়ে দেখতে পায়, জ্বরে আক্রান্ত বেলাল হোসেন বৃষ্টিতে ভিজছে। বৃষ্টিতে ভেজার কারণ জানতে চাইলে বেলাল হোসেন জানায়, স্ত্রী তাকে ঘর থেকে বের করে দিয়েছে। অপরদিকে পার্শ্ববর্তী বাড়ির সেডে গেলে তারাও তাড়িয়ে দিয়েছে। উপায়হীন হয়ে বৃষ্টিতে ভিজে ভিজে মরে যাওয়ার কথাই ভাবছে সে। শেরপুর থানা পুলিশ তাকে উদ্ধার করে শেরপুর হাসপাতালে নিয়ে আসে। বর্তমানে সে শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছে।
জ্বর তো বিভিন্ন কারণেই হতে পারে। জ্বর হলে যে করোনা এমন ধারণা তো সঠিক নয়। বেলাল হোসেনের অপরাধ সে জ্বরে পড়েছে। তাই প্রতিবেশী তো দূরের কথা আপন স্ত্রী-সন্তানও নিজ হাতে গড়া ঘরে জায়গা দেয়নি বৃদ্ধ বেলাল হোসেন কে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close