বিনোদন

চলচ্চিত্র নির্মাণে বাড়ানো হয়েছে সরকারি অনুদান

Spread the love


শেরপুর ডেস্ক: পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের জন্য ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে সর্বোচ্চ ৬০ লাখ টাকা অনুদান দেওয়া হয়েছিল। ২০২০-২১ অর্থ বছরে এটি ১৫ লাখ বাড়িয়ে সর্বোচ্চ ৭৫ লাখ টাকা করা হয়েছে। আর স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের অনুদান নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ লাখ টাকা। অর্থ বাড়ার সঙ্গে বেড়েছে শর্তও। যার মধ্যে অন্যতম অনুদানপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র নির্মাণ করতে হবে ৯ মাসের মধ্যে আর মুক্তি দিতে হবে কমপক্ষে ১০টি প্রেক্ষাগৃহে।
গত সোমবার এ সংক্রান্ত এক নীতিমালা প্রকাশ করেছে তথ্য মন্ত্রণালয়। সেখানে জানানো হয়েছে, মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক একটি চলচ্চিত্রসহ ১০টি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে অনুদান দেওয়া হবে। আর অনুদানপ্রাপ্ত চলচ্চিত্র কমপক্ষে ১০টি সিনেমা হলে মুক্তির দিতে হবে।
এবার একটি শিশুতোষ চলচ্চিত্রসহ ১০টি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের প্রত্যেকটিতে সর্বোচ্চ ১০ লাখ টাকা করে অনুদান দেওয়া হবে বলে আরেক নীতিমালায় জানানো হয়েছে।
অনুদানের টাকা পেতে নীতিমালার শর্তগুলোর মধ্যে রয়েছে- অনুদানের চেক প্রাপ্তির ৯ মাসের মধ্যে চলচ্চিত্রের নির্মাণ কাজ শেষ করতে হবে। চলচ্চিত্রের ভাষা ও বিষয়বস্তু জেন্ডার সংবেদনশীল হতে হবে। ডিজিটাল ফরমেটে দৃশ্যধারণ করতে হবে।
জানা গেছে, নতুন নীতিমালার আলোকে শিগগিরই ১১ সদস্যের অনুদান কমিটি ও ৭ সদস্যের অনুদান বাছাই কমিটি গঠন করা হবে। এরপর ৩১ আগস্টের মধ্যে চলতি অর্থ বছরের অনুদানের জন্য চলচ্চিত্রের গল্প ও চিত্রনাট্য আহ্বান করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করবে তথ্য মন্ত্রণালয়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close