দেশের খবর

ঘুরে আসুন দৃষ্টিনন্দন ‘বজরা শাহী মসজিদ’

Spread the love

শেরপুর ডেস্ক: বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায় দৃষ্টিনন্দন অনেক মসজিদ রয়েছে। তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে তিনশ বছরের পুরনো ‘বজরা শাহী মসজিদ’। মসজিদটি নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার বজরা গ্রামে অবস্থিত। মোঘল আমলে আঠারশ শতাব্দীতে অর্থ্যাৎ প্রায় তিনশ বছর আগে এটি নির্মিত হয়। দৃষ্টিনন্দন এ মসজিদটি নোয়াখালীর মাইজদীর সবচেয়ে ঐতিহাসিক স্থাপনাগুলোর একটি। মোগল সম্রাট মুহাম্মদ শাহের রাজত্বকালে ১৭৪১-৪২ খ্রিস্টাব্দে মসজিদটি নির্মাণ করেন আমান উল্লাহ।
১৯১১ থেকে ১৯২৮ সালের মাঝামাঝি সময়ে বজরা জমিদার খান বাহাদুর আলী আহমদ ও খান বাহাদুর মুজির উদ্দিন আহমদ মসজিদটি মেরামত করেছিলেন এবং সিরামিকের মোজাইক দিয়ে সাজিয়েছিলেন। বাংলাদেশে ইসলাম ধর্ম প্রচারে রয়েছে এ মসজিদের ঐতিহাসিক অবদান। দিল্লীর মোগল সম্রাটরা অবিভক্ত ভারতবর্ষে ৩০০ বছরের বেশি সময় রাজত্ব করেন। এ দীর্ঘ সময়ে মোগল সম্রাট এবং তাদের উচ্চপদের আমলারা বিভিন্ন স্থানে অসংখ্য ইমারত ও মসজিদ নির্মাণ করেন যা আজও স্থাপত্যশিল্পের বিরল ও উজ্জ্বল নির্দশন। এগুলোর মধ্যে ‘বজরা শাহী মসজিদ’ একটি।
২৯ নভেম্বর ১৯৯৮ থেকে বাংলাদেশ প্রতœতত্ব বিভাগ বজরা শাহী মসজিদের ঐতিহ্য রা এবং দুর্লভ নিদর্শন সংরণের জন্য কাজ করছে। মসজিদটি বর্তমানে ভালো অবস্থায় সংরতি এবং এটি প্রতœতত্ত্ব বিভাগের সুরতি স্থানগুলোর তালিকাতেও রয়েছে।
যেভাবে যাবেন: নোয়াখালী জেলা সদর মাইজদী থেকে সোনাইমুড়ী গামী যে কোন লোকাল বাস সার্ভিস বা সিএনজি অটো-রিকশা দিয়ে বজরা হাসপাতালের সামনে নামতে হবে। তারপর রিকশা বা পায়ে হেঁটে দুইশ গজ পশ্চিমে গেলে বজরা শাহী মসজিদে পৌঁছা যাবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close