বিনোদন

‘ইত্যাদি’ এবার বান্দরবানে

Spread the love

শেরপুর ডেস্ক: জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ইত্যাদি’র এবারের পর্ব ধারণ করা হয়েছে ঢেউ খেলানো পাহাড়-ঝর্ণা-নদী-সবুজ অরণ্য আর ুদ্র নৃগোষ্ঠীর বিচিত্র সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যে ঘেরা অপরূপা বান্দরবানে। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১৬০০ ফুট উপরে টাইগার পাহাড়ের চূড়ায় অবস্থিত পর্যটন কেন্দ্র নীলাচলে ধারণ করা হয় এ পর্বটি। শিকড় সন্ধানী ইত্যাদি’র এবারের পর্বে বান্দরবানের ইতিহাস, ঐতিহ্যের পাশাপাশি রয়েছে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমণ্ডিত, দর্শনীয় ও পর্যটকদের জন্য আকর্ষণীয় স্থানগুলোর উপর তথ্যভিত্তিক প্রতিবেদন। এছাড়াও রয়েছে পার্বত্য এলাকার ুদ্র নৃগোষ্ঠীর চঞ্চল কান্তি চাকমার ব্যতিক্রমী উদ্যোগের উপর একটি মানবিক প্রতিবেদন। ২০১১ সালে প্রচারিত ইত্যাদিতে টাঙ্গাইলের মধুপুর গড়ে স্থাপিত ব্যতিক্রমধর্মী স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্র কাইলাকুড়ী হেল্থ কেয়ার সেন্টার এবং এর পরিচালক নিউজিল্যান্ডের অধিবাসী ৭৪ বছর বয়স্ক ডাক্তার প্রয়াত এড্রিক বেকারের উপর একটি
প্রতিবেদন প্রচার করা হয়েছিল। তার মৃত্যুর পর হাসপাতালের নুতন ডাক্তার ভাই ও ডাক্তার দিদি জেসন-মারিন্ডি দম্পতির ব্যতিক্রমী কার্যক্রমের উপর রয়েছে একটি অনুকরণীয় প্রতিবেদন। পৃথিবীর কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সমুদ্র সৈকতের পরিবেশের উপর রয়েছে একটি সচেতনতামূলক প্রতিবেদন। এবারের বিদেশি প্রতিবেদনে রয়েছে ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যের পাথর নগরী বলে খ্যাত মামাল্লাপুরামের কিছু স্মৃতিস্তম্ভের উপর সচিত্র প্রতিবেদন।
অনুষ্ঠানে মূল গান রয়েছে দু’টি। এসবের মধ্যে রয়েছে বাংলা ও মারমা গানের দু’জন প্রতিষ্ঠিত শিল্পীর কণ্ঠে একটি অনুরাগের গান। শিল্পী দু’জন হলেন বাংলা গানের আঁখি আলমগীর এবং মারমা গানের মান মান সিং। গানটি লিখেছেন মোহাম্মদ রফিকউজ্জামান, সুর করেছেন হানিফ সংকেত, সংগীতায়োজন করেছেন মেহেদী। এছাড়াও বান্দরবানের সবুজ-শ্যামল রূপ বৈচিত্র্য নিয়ে মোহাম্মদ রফিকউজ্জামানের কথায়, হানিফ সংকেতের সুর ও মেহেদীর সংগীতায়োজনে আর একটি গানের সঙ্গে নৃত্য পরিবেশন করেছেন বান্দরবানের ১১টি নৃগোষ্ঠী ও বাঙালি শিল্পীদের সমন্বয়ে শতাধিক নৃত্যশিল্পী। নাচের গানে কণ্ঠ দিয়েছেন চথইফ্রু মারমা, কমল, হামেচিং মারমা ও তানজিনা রুমা। মারমা ভাষায় গানটি অনুবাদ করেছেন চথুইফ্রু মারমা, নৃত্য পরিচালনা করেছেন প্রাণ গোপাল। দর্শকপর্বের পাশাপাশি নিয়মিত অন্যান্য পর্বসহ অনুষ্ঠানে এবারো রয়েছে বিভিন্ন সমসাময়িক ঘটনা নিয়ে বেশকিছু সরস অথচ ত্নী নাট্যাংশ। পর্যটক বান্ধব দোকান, সাাৎকার নিয়ে ব্যবসা, অনলাইনে ভিা, ডিজিটাল শিক, মরণোত্তর প্রশংসা, স্বভাবে মানুষ নষ্টসহ বিভিন্ন বিষয়ের উপর রয়েছে বেশ কয়েকটি নাট্যাংশ। ইত্যাদির শিল্প নির্দেশনা ও মঞ্চ পরিকল্পনায় ছিলেন মুকিমুল আনোয়ার মুকিম। এবারের ইত্যাদিতে উল্লেখযোগ্য শিল্পীরা হলেন মাসুদ আলী খান, এটিএম শামসুজ্জামান, সোলায়মান খোকা, জিয়াউল হাসান কিসলু, শবনম পারভীন, আব্দুল কাদের, আফজাল শরীফ, সুভাশিষ ভৌমিক, কাজী আসাদ, জিল্লুর রহমান, কামাল বায়েজিদ, বিলু বড়ুয়া, জিনাত সানু স্বাগতা, জামিল হোসেন, নিপু, সজল, তারিক স্বপন, আনোয়ার শাহী, রতন খান, রেহান অবিদ, সাবরিনা নিসা, নজরুল ইসলাম, সাজ্জাদ সাজু, মনজুর আলম, ইমিলাসহ আরো অনেকে। পরিচালকের সহকারী হিসাবে ছিলেন যথারীতি রানা ও মামুন। ইত্যাদি’র এই বান্দরবানের পর্বটি একযোগে বিটিভি ও বিটিভি ওয়ার্ল্ডে প্রচার হবে ২৯শে নভেম্বর রাত ৮ টার বাংলা সংবাদের পর। ‘ইত্যাদি’ রচনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনা করেছেন হানিফ সংকেত। নির্মাণ করেছে ফাগুন অডিও ভিশন। স্পন্সর করেছে যথারীতি কেয়া কসমেটিকস লিমিটেড।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close