দেশের খবর

স্বাস্থ্যের গাড়িচালক আবদুল মালেকের ৩০ বছর কারাদণ্ড

Spread the love


শেরপুর ডেস্ক: স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের গাড়িচালক হয়ে দুর্নীতির মাধ্যমে শত শত কোটি টাকার মালিক বনে যাওয়া আবদুল মালেক ওরফে বাদলের অস্ত্র আইনের মামলার রায় ঘোষণায় ১৫ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।
সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল আলমের আদালত রায় ঘোষণা করেন। দুইটি পৃথক ধারায় ১৫ বছর করে ৩০ বছর কারাদণ্ড দিলেও সাজা একই সঙ্গে চলবে বলে মোট ১৫ বছর কারাদণ্ড ভোগ করবেন মালেক।

এদিকে আদালত রায় ঘোষণার সময় এজলাস থেকে বেরিয়ে ড্রাইভার মালেক চিৎকার করে বলতে থাকেন, র‌্যাব আমার কাছ থেকে কিছুই পায়নি। আমাকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো দেওয়া হয়েছে। আর এ মিথ্যা মামলায় আমাকে সাজা দেওয়া হলো। আমি নির্দোষ।
এর আগে গত ১৩ সেপ্টেম্বর ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল আলম মামলার যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে রায়ের জন্য ২০ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেছিলেন। মামলাটিতে মোট ১৩ সাক্ষীর সকলের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষ হয়েছে।
২০২০ সালের ২০ সেপ্টেম্বর ভোরে রাজধানীর তুরাগ থানাধীন কামারপাড়াস্থ ৪২ নম্বর বামনেরটেক হাজী কমপ্লেক্সের তৃতীয় তলার বাসা থেকে মালেককে গ্রেফতার করে র‌্যাব-১। এ সময় তার কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, একটি ম্যাগাজিন, পাঁচ রাউন্ড গুলি, এক লাখ ৫০ হাজার বাংলাদেশি জাল টাকা, একটি ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে র‌্যাব-১ এর পুলিশ পরিদর্শক আলমগীর হোসেন বাদী হয়ে অস্ত্র আইনসহ পৃথক দুইটি মামলা দায়ের করেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close