দেশের খবর

সিংড়ায় ই-রিকশা ‘চলো’ উদ্বোধন করলেন পলক

Spread the love

সিংড়া প্রতিনিধি: পরিবহন ব্যবস্থার উন্নয়ন, আধুনিকীকরণ ও গতিশীলতা বৃদ্ধির ল্েয নাটোরের সিংড়া পৌরসভায় ১০টি পরিবেশবান্ধব ই-রিকশা “চলো” পরিবহন ও দুইটি অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসের উদ্বোধন করা হয়েছে।
শুক্রবার বিকেল সাড়ে চারটায় পৌরসভা প্রাঙ্গণে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক নিজে ই-রিকশা (অটোরিকশা) চালিয়ে ব্যতিক্রমধর্মী পরিবহনের শুভ উদ্বোধন করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সিংড়া পৌরসভার মেয়র জান্নাতুল ফেরদৌস, টুমি জিআইজেড এর কনসালটেন্ট মাইকেল ফিংক, টেকনিক্যাল অ্যাডভাইজর সাবাহ শামসী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) আকরামুল হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সিংড়া সার্কেল জামিল আক্তার প্রমুখ।
সিংড়া পৌরসভা সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার সিংড়া পৌর শহরে চালু করা হয়েছে ব্যতিক্রমধর্মী এই ‘চলো’ পরিবহন। পৌরসভা পাবলিক ট্রান্সপোর্ট ও অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস টুমি গ্লোবাল আরবান মোবিলিটি চ্যালেঞ্জ ২০১৮তে মোট ১৩০টি শহর তাদের প্রস্তাবনা দাখিল করে। যার মধ্যে বাংলাদেশে একমাত্র সিংড়া পৌরসভা এই প্রকল্পটি অনুমোদন লাভ করে তৃতীয় স্থান লাভ করে।
সিংড়া শহরকে দূষণ মুক্ত ও পৌরবাসীর জরুরি স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে দুটি অ্যাম্বুলেন্স সেবার পাশাপাশি ১০টি পরিবেশ বান্ধব ই-রিকশা “চলো’ পরিবহন প্রদান করেছে জার্মানির জিআইজেড প্রকল্প। চলো পরিবহনের দুটিতে ৮ জন যাত্রী, চারটিতে ৪ জন যাত্রী ও চারটিতে ৩ জন যাত্রী যাতায়াত করতে পারবে। এছাড়া অ্যাম্বুলেন্স দুটিতে রোগীসহ তিনজন যাত্রী যাতায়াত সুবিধা পাবে।
পৌরসভার হটলাইনে ফোন করলেই দিন-রাত ২৪ ঘণ্টা বিভিন্ন নাগরিক সেবা প্রদান করবে এই চলো পরিবহন। সমাবেশে প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, দূষণমুক্ত তথা জলবায়ু-বান্ধব শহর গড়ে তোলার জন্য বিশ্বের সকল দেশ একযোগে কাজ করে যাচ্ছে। যানবাহন হলো অন্যতম বৃহত্তম ত্রে যা বেশি মাত্রার কার্বণ নিঃসরণের জন্য দায়ী। জার্মানির জিআইজেড এর টুমি প্রকল্পের আওতায় টেকসই ও স্বাস্থ্যসম্মত যানবাহন ব্যবস্থার কার্যক্রম হাতে নিয়েছে। তিনি এ প্রকল্পের প্রশংসা করে বলেন, সিংড়া একটি ছোট শহর হলেও এই শহরকে সুন্দর এবং দৃষ্টিনন্দন করে গড়ে তোলার জন্য যা যা করনীয় সব কিছুই করা হবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close