জেলার খবর

বগুড়ায় প্রেমের ফাঁদে ২১ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে গ্রেফতার ৪

Spread the love


শেরপুর ডেস্ক: বগুড়ায় প্রেমের ফাঁদে ফেলে কৌশলে অপহরণ করে ২১ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে প্রতারক চক্রের তিননারীসহ চারজনকে ৫লাখ টাকাসহ গ্রেফতার করা হয়েছে। জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)’র ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মো: সাইহান ওলিউল্লাহ’র নেতৃত্বে ডিবির একটি টিম বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে।

ডিবি সূত্র জানায়, গ্রেফতারকৃতরা হলো, শিবগঞ্জ উপজেলার সংসারদিঘী এলাকার সোহরাব আলীর ছেলে নাছির উদ্দিন (৩৬),একই উপজেলার নিশ্চিন্তপুরের মৃত আলমগীর হোসেনের স্ত্রী রুনা আক্তার (৪২), সদরের পূর্ব পালশা এলাকার ফরহাদ শেখের স্ত্রী আমেনা খাতুন ওরফে রেশমী (৪০) ও গাবতলী উপজেলার মহিষাবান সাতঘড়িয়াপাড়া এলাকার মৃত তবিবর রহমানের মেয়ে সেলিনা আক্তার ঝিনুক ওরফে ঝিনুক মালা (৩৭)। এদের মধ্যে মালা কলোনী টনাপাড়ায় এবং ফুলতলা বাজার এলাকায় ভাড়া বাড়িতে বসবাস করে আসছিল।
জানা যায়, এই চক্র এক সরকারি কর্মকর্তাকে ফাঁদে ফেলে অপহরন করে আটক রেখে বিভিন্ন ভয়ভীতি, ক্ষতি ও মৃত্যু’র হুমকি দিয়ে গত ১৬ মার্চ থেকে ৫ জুনের মধ্যে ২১ লাখ টাকা চাঁদা আদায় করে। পরে এ ব্যাপারে সদর থানায় মামলা দায়ের করা হলে ডিবি পুলিশ এই চক্রের সদস্যদের ধরতে মাঠে নামে। এক পর্যায়ে আজ বুধবার ভোররাতে বিভিন্নস্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে। এ সময় এদের কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা ও ২টি মোবাইল ফোন আলামত হিসাবে জব্দ করা হয়।
ডিবি’র ওসি মো: সাইহান ওলিউল্লাহ জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা জানায় যে, তারা দীর্ঘদিন ধরে সমাজের বিভিন্ন সম্মানি ব্যাক্তিদের টার্গেট করে তাদের সাথে সখ্যতা গড়ে তুলতো। এরপর কৌশলে বিভিন্ন মিথ্যা অজুহাতে ভূক্তভোগিদের আসামীদের ভাড়া বাসায় ডেকে নিয়ে গিয়ে নিজেরা নগ্ন বা অর্ধনগ্ন হয়ে জোড়পূর্বক ভূক্তভোগিদের সাথে ছবি ও ভিডিও করে রাখতো। পরে এই ছবি ও ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার ভয়ভীতি দেখিয়ে ভূক্তভোগিদের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে আসছিল।
উল্লেখ্য, গ্রেফতারকৃতরা অপহরন, চাঁদাবাজ ও মানব পাচারকারী চক্রের সক্রিয় সদস্য। এর মধ্যে নাছির উদ্দিন আদালতে তার দোষ স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দিও দিয়েছে। এ ছাড়া রুনা আক্তার (৪২) এর বিরুদ্ধে মানব পাচার আইনে একটি মামলাও রয়েছে।

 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
Close