স্থানীয় খবর

শেরপুর পৌর ভুমি অফিসে ভুমির মালিকদের ভোগান্তি

Spread the love

“মুনসী সাইফুল বারী ডাবলু”
বগুড়ার শেরপুর পৌর ভুমি অফিসে পৌর ভুমি সহকারী কর্মকর্তা (নায়েব) না থাকায় ভুমির মালিকদের নানারকম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।
সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানাযায় পৌর ভুমি সহকারী কর্মকর্তা মো: হাবিল উদ্দিন ২০১৮ সালের ২৯ নভেম্বর আবসর জনিত কারনে পদটি শুন্য হলে উপজেলার বিশালপুর ইউনিয়নের ভুমি সহকারী কর্মকর্তা ফেরদৌস জামান প্রিন্সকে শেরপুর পৌর ভুমি অফিসে অতিরিক্ত দায়িত্ব দেওয়া হয়। তিনি বিশালপুর ইউনিয়ন ভুমি অফিসের কাজ শেষ করে বিকালে শেরপুর ভুমি অফিসে আসেন। এদিকে রবিবার বেলা ১১ টায় শেরপুর ভুমি অফিসে গিয়ে অফিস সহকারী ফেরদৌস আলমকেও পাওয়া যায়নি। একমাত্র এমএলএসএস (পিয়ন) আব্দুস সাত্তারকে চেয়ারে বসে একজন ভুমি মালিকের সাথে জমির নামজারি করার বিষয় নিয়ে দরদাম করতে দেখা যায়। এ সময় আরও একজন জমির মালিক খাজনা দিতে চাইলে আব্দুস সাত্তার তাকে বলেন যে টাকা সহ কাগজ দিয়ে যান বিকালে এসে খাজনার রশিদ নিয়ে যাবেন। অফিস সহকারী ফেরদৌস আলম কোথায় আছে জানতে চাইলে তার কোন জবাব পাওয়া যায়নি।
এ ব্যাপারে শেরপুর উপজেলা সহকারী কশিনার (ভুমি) আরাফাত হোসেনের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন পৌর ভুমি সহকারী কর্মকর্তা পদটি শুন্য থাকায় বিশালপুর ইউনিয়নের ভুমি সহকারী কর্মকর্তা ফেরদৌস জামান প্রিন্সকে সেখানে অতিরিক্ত দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। বিশালপুর ইউনিয়ন ভুমি সহকারী কর্মকর্তা ফেরদৌস জামান প্রিন্স এর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন সরকারী ছুটির দিন ছাড়া অন্যান্যদিন তিনি বিশালপুর ইউনিয়ন ভুমি অফিসের কাজ শেষে বিকালে শেরপুর পৌর ভুমি অফিসে এসে অতিরিক্ত কাজ করেন। তিনি আরও বলেন শেরপুর পৌর ভুমি সহকারী কর্মকর্তা পোষ্টিং দেওয়া হলে ভুমি মালিকদের আর কোন ভোগান্তি থাকবেনা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close