স্থানীয় খবর

শেরপুরে শিশু কন্যাকে হত্যার অভিযোগে বাবা গ্রেপ্তার

Spread the love


শেরপুর ডেস্কঃ বগুড়ার শেরপুর উপজেলায় ১৬ মাস বয়সী মেয়ে সন্তানকে ডোবায় ছুঁড়ে ফেলে হত্যার অভিযোগ উঠেছে বাবার বিরুদ্ধে।

মঙ্গলবার ভোরে ডোবা থেকে শিশুটির লাশ উদ্ধার করা হয়। একই সঙ্গে বাবা জাকির হোসেনকে (৪৫) আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন স্থানীয়রা। এর আগে, সোমবার দিবাগত রাত একটার দিকে ওই উপজেলার কুসুম্বী ইউনিয়নের উঁচুলবাড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। জাকির হোসেন উঁচুলবাড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা। নিহত শিশুর নাম মোছা. হুমায়রা খাতুন।

স্বজনদের বরাত দিয়ে শেরপুর থানার এসআই সাচ্চু বিশ্বাস জানান, পারিবারিক কলহের জেরে নিজের মেয়েকে হত্যা করেছেন জাকির । সোমবার দিবাগত রাতে মেয়েটিকে ঘুমন্ত অবস্থায় বিছানা থেকে তুলে নিয়ে বাড়ির পাশে ডোবায় ছুঁড়ে ফেলে দেন জাকির। এরপরে নিজ ঘরে এসে ঘুমিয়ে পড়েন তিনি। এক পর্যায়ে তার স্ত্রী রাবেয়া খাতুনের ঘুম ভেঙে গেলে পাশে মেয়েকে দেখতে না পেয়ে খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। এসময় স্বামী জাকিরের আচরণে রাবেয়ার সন্দেহ হয়। তিনি বুঝতে পারেন জাকিরই কিছু একটা করেছেন।
এসআই সাচ্চু বিশ্বাস আরও জানান, রাবেয়া মেয়ে হুমায়রাকে খুঁজে না পেয়ে অবশেষে আশেপাশে থাকা স্বজনদের ডাক দেন। পরে তারা সবাই মিলে জাকিরকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন। সবার চাপে পড়ে মঙ্গলবার ভোরে মেয়েকে ডোবায় ফেলে দেওয়ার কথা স্বীকার করেন জাকির। এরপর পরই ডোবা থেকে শিশুটির মৃতদেহ উদ্ধার করেন স্থানীয়রা। পরে তারা পুলিশকে খবর দেন। ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ হেফাজতে নিয়ে জাকিরকে আটক করা হয়।
শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আতাউর রহমান খন্দকার জানান, জাকির তার মেয়েকে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন। কিন্তু কেন তিনি এ ধরণের ঘটনা ঘটালেন এ বিষয়ে কিছু বলছেন না। হত্যার অভিযোগ ওঠার পর জাকিরকে আটক করা হয়েছে। একই সঙ্গে শিশুটির লাশ ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
Close