দেশের খবর

বিদেশি পর্যটকদের রেকর্ড ভাঙা ঢল কুয়াকাটায়

Spread the love

শেরপুর ডেস্ক: বছরের শুরুতেই বিদেশি পর্যটকদের আগমনে কুয়াকাটা সৈকত মুখরিত। ইংরেজি নববর্ষ উদযাপনে রাশিয়া, নাইজেরিয়া, সুদানসহ বেশ কয়েকটি দেশ থেকে শতাধিক পর্যটক ছুটে এসেছেন কুয়াকাটা সাগর সৈকতে। বিদায়ী বছরের শেষ সূর্যাস্ত, থার্টি ফার্স্ট নাইট উদযাপন আর নতুন বছরের প্রথম সূর্যোদয় উপভোগ করতেই বিদেশিদের ঢল নামে কুয়াকাটায়। আর বছরের শুরুতেই রেকর্ড সংখ্যক বিদেশি পর্যটকের আগমনে খুশি পর্যটনমুখী ব্যবসায়ীরা।

ট্যুরিস্ট পুলিশ আর আবাসিক হোটেল মালিকদের মতে, এর আগে একত্রে এতো বেশি বিদেশি পর্যটকের আগমন ঘটেনি। থার্টি ফার্স্ট নাইট থেকে সৈকতে প্রতিদিনই আসছেন বিদেশি পর্যটকরা। তারা দল বেঁধে এলেও আবাসন সংকটে প্রথম শ্রেণির হোটেলসহ বিভিন্ন আবাসিকে ভাগ ভাগ হয়ে রুম নিয়েছেন। তবে বিদেশি পর্যটকদের পাশাপাশি দেশি পর্যটকদেরও ঢল নেমেছে।
কুয়াকাটা ট্যুরিস্ট জোনের সহকারী সিনিয়র পুলিশ সুপার জহিরুল ইসলাম বলেন, এক সঙ্গে ৬১ জন রাশিয়ান পর্যটক এসেছেন কুয়াকাটা ভ্রমণে। এছাড়া নাইজেরিয়ানসহ বিভিন্ন দেশের পর্যটকদের বেশি দেখা গেছে। বিদেশি এসব পর্যটকদের নিরাপত্তা দিতে ট্যুরিস্ট পুলিশের পাশাপাশি থানা পুলিশও সজাগ দৃষ্টি রেখেছে।
স্থানীয়রা বলছেন, বছরের শুরু থেকে দেশি-বিদেশি পর্যটকদের আগমনে কুয়াকাটা সৈকতে উৎসবের আমেজ লেগেছে। আগে এমন বিদেশি পর্যটকদের দেখা যায়নি। এবার পশ্চিমা থেকে শুরু করে আফ্রিকার দেশ থেকে বেশি এসেছেন পর্যটকরা।
ব্যবসায়ীরা বলছেন, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন, হোটেল-মোটেলের সুবিধা ও আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভালো হওয়ায় হাজার হাজার পর্যটক ও দর্শনার্থীর সমাগম হয়েছে। কুয়াকাটা ছাড়াও কুয়াকাটামুখী আন্ধারমানিক নদীর ওপর নির্মিত শেখ কামাল সেতু, টিয়াখালী নদীর ওপর নির্মিত শেখ জামাল সেতু ও শিববাড়িয়া নদীর ওপর নির্মিত শেখ রাসেল সেতুর ওপরও ছিল শেষ সূর্যাস্ত দেখতে আসা মানুষের ঢল।
এছাড়া পায়রা সমুদ্র বন্দর, গঙ্গামতি সৈকত ও কাউয়ার চরে পিকনিক পার্টির কয়েক হাজার পর্যটক নতুন বছরকে স্বাগত এবং পুরাতন বছরকে বিদায় জানাতে সমাগম হয়েছিলেন। থার্টি ফার্স্ট নাইট উদযাপনকে ঘিরে নববর্ষের আগের দিন সকাল থেকেই দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পর্যটকরা আসতে শুরু করেন। এখনও পর্যটকের ঢল দেখা যাচ্ছে কুয়াকাটার দিকে।

ইলিশ পার্ক ইকো রিসোর্টের স্বত্ত্বাধিকারী সাংবাদিক রুমান ইমতিয়াজ তুষার জানান, তার রিসোর্টে বিদেশি বহু পর্যটক উঠেছেন। তারা নিজেদের মতো করে বর্ষবরণ উৎসব পালন করেছেন। তবে থার্টি ফার্স্ট নাটকে কুয়াকাটায় বড় কোনো অনুষ্ঠান হয়নি। আইন-শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তার স্বার্থেই পর্যটকরা ইনডোরে আতশবাজিসহ নানা আয়োজনে মেতে ছিলেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close