দেশের খবর

বিশ্ব ইজতেমায় স্মরণকালের বৃহত্তম জুমার নামাজ

Spread the love

শেরপুর ডেস্ক: বিশ্ব ইজতেমায় গতকাল স্মরণকালের বৃহত্তম জুমার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। লাখ লাখ মুসল্লি এ নামাজে অংশগ্রহণ করেন। আগামীকাল আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে প্রথম পর্বের এই ইজতেমা শেষ হচ্ছে। দ্বিতীয় পর্ব শুরু হবে ১৭ জানুয়ারি থেকে।
রাজধানীর সন্নিকটে টঙ্গী তুরাগ নদের তীরে তাবলিগ জামাতের আলমি শুরাদের তত্ত্বাবধানে তিন দিনব্যাপী ৫৫তম বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব গতকাল থেকে শুরু হয়েছে। ছুটির দিন থাকায় এবং জুমার দিন হওয়ায় এ দিন সকাল থেকে গাজীপুর, টঙ্গীসহ আশপাশের লোকজন ইজতেমায় অংশ নিতে যানবাহন কিংবা হেঁটে ইজতেমা ময়দানে এবং আশপাশ এলাকায় অবস্থান নেন। নামাজে শরিক হতে ময়দানের পশ্চিম পাশে আশুলিয়া সড়ক, উত্তরে কামারপাড়া সড়ক, পূর্বে ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়ক ও টঙ্গী কালিগঞ্জ সড়ক, বিভিন্ন বাসের ছাদে ও বাসাবাড়ির ছাদে মুসল্লিরা অবস্থান নিয়ে নামাজ আদায় করেন। জুমার নামাজকে কেন্দ্র করে দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত টঙ্গী-কালিগঞ্জ সড়ক, কামারপাড়া, আশুলিয়া ও ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে যানচলাচল বন্ধ ছিল। এতে তীব্র যানযটের সৃষ্টি হয়। ভোগান্তিতে পড়েন হাজার হাজার পরিবহনযাত্রী। দুপুর ১টা ৩৫ মিনিটে জুমার নামাজের আগে খুতবা শুরু হয় এবং ১টা ৪৩ মিনিটে নামাজ শুরু হয়। জুমার নামাজ পড়ান বাংলাদেশি শুরা সদস্য মাওলানা মোহাম্মদ জোবায়ের হাসান। নামাজের পর বয়ান করেন ফ্রান্সের আরব এলাকার শুরা সদস্য মাওলানা শেখ ইউনুস। কাল আখেরি মোনাজাতও পরিচালনা করবেন মাওলানা মোহাম্মদ জোবায়ের হাসান। জুমার নামাজে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ. ক. ম মোজাম্মেল হক, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল, গাজীপুর সিটি মেয়র অ্যাড. জাহাঙ্গীর আলম, পুলিশ কমিশনার মো. আনোয়ার হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট আজমত উল্লাহ খান, মতিউর রহমান মতি, আসাদুর রহমান কিরণ প্রমুখ অংশ নেন।
আজ বয়ান করবেন যারা : আজ বাদ ফজর মুম্বাই মারকাজের মুরব্বি মাওলানা আবদুর রহমান উপস্থিত সাথীদের উদ্দেশে বয়ান করবেন। পরে আলেম-ওলামাদের উদ্দেশে বিশেষ বয়ান করবেন মাওলানা ইবরাহীম দেউলা, আরবের শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ বয়ান করবেন মাওলানা আকবর শরীফ, জোহরের পর মাওলানা ইসমাইল গোধরা, বাদ আসর শায়খ মাওলানা জোহায়ারুল হাসান, বাদ মাগরিব মাওলানা ইবরাহীম দেউলা। পরে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে মাঠে বিশেষ বয়ান করবেন মাওলানা আহমদ লাট।
কাল বয়ান করবেন যারা : আগামীকাল বাদ ফজর হেদায়েতি বয়ান করবেন মাওলানা জিয়াউল হক, আখেরি মোনাজাতের আগে বিশেষ বয়ান করবেন মাওলানা ইবরাহীম দেউলা। আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করবেন কাকরাইলের মুরব্বি মাওলানা মোহাম্মদ জোবায়ের হাসান। সিদ্ধান্ত রয়েছে, সকাল ১০টা থেকে ১১টার মধ্যে বিশ্ব মুসলিমের শান্তি ও কল্যাণ কামনা করে আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করা হবে।
৪ মুসল্লির মৃত্যু : টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমায় বৃহস্পতিবার থেকে গতকাল বিকাল পর্যন্ত ৪ মুসল্লি মারা গেছেন। তাদের সবাই বার্ধক্যজনিত কারণে মৃত্যুবরণ করেন। গতকাল ভোরে সিরাজগঞ্জ জেলার কাজীপুর থানার পাটাগ্রামের মৃত আমির শেখের ছেলে খোকা মিয়া (৬০), চট্টগ্রাম জেলার পটিয়া থানা এলাকার খইগ্রামের গোরা মিয়ার ছেলে মোহাম্মদ আলী (৭০) ও নওগাঁ জেলার আত্রাই থানার পাইকরা বড়বাড়ী গ্রামের মৃত সোলাইমানের ছেলে শহীদুল ইসলাম (৫৫) মারা যান। এ ছাড়া গত দুই দিনে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে প্রায় ৬শ মুসল্লি টঙ্গী আহসান উল্লাহ জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।
ইজতেমায় বিদেশি মুসল্লি : ইজতেমার প্রথম পর্বে সৌদি আরব, জর্ডান, মিসর, ওমান, সংযুক্ত আরব-আমিরাত, কাতার, কানাডা, কম্বোডিয়া, ডেনমার্ক, ফিনল্যান্ড, জার্মানি, ইরান, জাপান, মাদাগাস্কার, মোজাম্বিক, নাইজেরিয়া, সেনেগাল, দ. আফ্রিকা, তাঞ্জানিয়া, রাশিয়া, জিম্বাবুয়ে, বেলজিয়াম, ক্যামেরেুন, চীন, কমোরস, ফিজি, ফ্রান্স, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, শ্রীলঙ্কা, নিউজিল্যান্ড, নরওয়ে, আফগানিস্তান, অস্ট্রেলিয়া, থাইল্যান্ড, কুয়েত, মরক্কো, কাতার, তিউনিশিয়া, ইয়েমেন, বাহরাইন, ইরিত্রিয়া, ভারত, দুবাইসহ বিশ্বের প্রায় ৫৫টি দেশের প্রায় ২ হাজার ২শ মুসল্লি অংশ নিয়েছেন। গাজীপুর সিটি মেয়র জাহাঙ্গীর আলম বলেন, এবার অনেক মুসল্লি ময়দানে এসেছেন। স্থান সংকুলান না হওয়ায় অনেক মুসল্লি ময়দানের বাইরে অবস্থান নিয়েছেন। আমাদের সিটির পক্ষ থেকে আগত মুসল্লিদের সেবায় দিনরাত কাজ করছে বেশ কয়েকটি টিম। কাল আখেরি মোনাজাতকে কেন্দ্র করে ময়দানের আশপাশে অতিরিক্ত মাইকের ব্যবস্থা করা হয়েছে, যাতে মুসল্লিরা মোনাজাতে শরিক হতে পারেন। স্থানীয় এমপি যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল বলেন, পুরো ইজতেমা ময়দান নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা রয়েছে। আগত মুসল্লিদের সেবায় সিটি করপোরেশনসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান কাজ করছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close