বিদেশের খবর

গুপ্তধনের সন্ধানে… সুড়ঙ্গ

Spread the love

শেরপুর ডেস্ক: জমিতে বাড়ি তৈরি করতে খোঁড়াখুড়ির কাজ চলছিল। এমন সময় বেরিয়ে এলো ইট দিয়ে তৈরি সাতফুট লম্বা ও চার ফুট চওড়া একটি সুড়ঙ্গ। সঙ্গে সঙ্গে মোহর ভরা কলস (গুপ্তধন) আছে ওই সুড়ঙ্গে-এমন কৌতুহল জেগে উঠল মানুষের মধ্যে। আর এই কৌতুহল এক কান দুই কান হয়ে ছড়িয়ে পড়লো পুরো গ্রামে। যদিও শেষ পর্যন্ত গুপ্তধনের সন্ধান মেলেনি সেখানে। সম্প্রতি ভারতের পূর্ব বর্ধমান জেলার ভাতারের মাহাতা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জিনিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাড়ি তৈরির জন্য জমি খোঁড়াখুড়ির কাজ চলছিল। এ সময় সাতফুট লম্বা ও চার ফুট চওড়া সুড়ঙ্গের সন্ধান মিলে সেখানে। পরে মুখে মুখে রটে যায় সুড়ঙ্গে মোহর ভরা কলস রয়েছে। আর এটি দেখতেই ছুটে আসতে থাকে মানুষ। পরে সুড়ঙ্গ রক্ষায় পরিস্থিতি সামাল দিতে মাঠে নামতে হয় পুলিশকে। তবে ফাঁকা সুড়ঙ্গে মেলেনি গুপ্তধন।
ইটের কাঠামো দেখে অনেকে বলছেন, ইংরেজ আমলে পানি বের করার টানেলের কাজে এই ধরনের স্ট্রাকচার তৈরি হয়ে থাকতে পারে। তবে সব মিলিয়ে জমির মালিকের মাথায় হাত। বাড়ি নির্মাণ আপাতত বন্ধ।
প্রসঙ্গত, ভাতারের সঙ্গে ইতিহাস যোগ রয়েছে। মনসামঙ্গল কাব্যে বর্ণিত বেহুলার বাবার বাড়ি ছিল এই এলাকায়। লখাইয়ের ঢিবিও এই এলাকায় ছিল বলে মনে করা হয়। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের খননে সামুদ্রিক মাছের হাড় ও পোড়া চাল পাওয়া গিয়েছিল।
প্রতœতত্ত্ববিদদের মতে, পোড়া চাল প্রায় দুই হাজার বছর আগেকার। মুসলিম শাসনকালে এখানে বহু মসজিদ স্থাপন করা হয়। আবার জৈনধর্মের নিদর্শনও পাওয়া গেছে এখানে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close